ওয়েব ডিজাইন শেখার পদ্ধতি নতুনদের জন্য – Newfreelancing

0Shares

 

ওয়েব ডিজাইন শেখার পদ্ধতি, কেন হতে হবে ওয়েব ডিজাইনার?

যারা web design শিখবেন ভাবছেন বা ওয়েব ডিজাইন আসলে কি?

কিভাবে কাজ করলে অথবা কি কি শিখলে আপনি ওয়েব ডিজাইনার হতে পারবেন?

এসব প্রশ্নের উত্তর খুঁজছেন, আশা করি তারা এই উত্তর গুলো পেয়ে যাবেন এই লেখার মাধ্যমে।

 

ওয়েব ডিজাইন শেখার পদ্ধতি (How to learn web design) :

ওয়েব ডিজাইন কি :

What is web design in bangla?

website design বা ওয়েব ডিজাইন  মানে হচ্ছে একটা ওয়েবসাইট দেখতে কেমন হবে বা এর সাধারণ রূপ কেমন হবে তা নির্ধারণ করা।

ওয়েব ডিজাইনার হিসেবে আপনার কাজ হবে একটা পরিপূর্ণ ওয়েবসাইটের নমুনা বানানো।

যেমন ধরুন, এটা দেখতে কেমন হবে। হেডারে কোথায় মেনু থাকবে।

সাইডবার হবে কি হবেনা, ছবি গুলো কীভাবে প্রদর্শন করবে ইত্যাদি।

অন্যভাবে বলতে গেলে,

ওয়েবসাইটের ইনফরমেশন কী হবে এবং কোথায় জমা থাকবে এগুলো চিন্তা না করে, তথ্যগুলো কীভাবে দেখানো হবে সেটা নির্ধারণ করাই হচ্ছে ওয়েব ডিজাইনারের কাজ।

আর এ ওয়েব ডিজাইন নির্ধারণ করতে ব্যবহার করতে হবে কিছু প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ, স্ক্রিপ্টিং ল্যাঙ্গুয়েজ এবং মার্কআপ ল্যাঙ্গুয়েজ।

 

কেন ওয়েব ডিজাইন শিখবেন :

বর্তমান যুগে অনেকেই ওয়েব ডিজাইন শিখে লাখ টাকা আয় করছে।

এর কারণ হচ্ছে বর্তমানে পৃথিবীতে সবকিছুর যোগাযোগ, কেনাবেচা, লেনদেন সবকিছুই হচ্ছে ইন্টারনেটের মাধ্যমে।

এক হিসাব অনুযায়ী, প্রতি মাসে প্রায় ১ মিলিয়ন ওয়েবসাইট অনলাইনে সংযুক্ত হচ্ছে।

তাই আরেক জনের পণ্য বা সেবা কিনছে। একজন আরেক জনের সঙ্গে কথা বলছে।

একজন তার কোম্পানির পরিচিতি বা সেবার জন্য ওয়েবসাইট দরকার।

আর এ সবকিছুই যখন ওয়েবসাইটের মাধ্যমে হচ্ছে তাই সবাই চায় যে তার একটা নিজের ওয়েবসাইট থাকুক।

আর যখনই সে ওয়েবসাইট বানাতে চায় তখনই একজন ওয়েব ডিজাইনারের প্রয়োজন হয়।

যে তার ওয়েবসাইটটি তৈরি করে দেবে। আর এ কারণেই মূলত ওয়েব ডিজাইনারের এত কদর।

 

কি কি শিখবেন :

এখন তাহলে জানা যাক কি কি শিখলে আপনি ওয়েব ডিজাইন করতে পারবেন বা ডিজাইনার হতে পারবেন।

এই প্রশ্ন অনেকের মনেই আসে বিশেষ করে যারা একেবারেই নতুন ওয়েব ডিজাইনার হতে চায়।

নানারকম কনফিউশন কাজ করে তাদের মধ্যে।

কি শিখবো আগে? কি কি শিখলে web design করতে পারব, আরও অনেক কিছু।

ওয়েব ডিজাইন করতে গেলে আপনাকে যা আগে জানতেই হবে সেগুলো হচ্ছে :

১.  এইচটিএমএল (HTML)

২. সিএসএস (CSS)

৩. বুটস্ট্রাপ (Bootstrap)

৪. জাভাস্ক্রিপ্ট (Javascript) [Basic]

৫. জেকুয়েরি (jQuery)

 

কেন শিখবেন :

আপনি যদি মনে করেন আপনি অনলাইনে ক্যারিয়ার গড়বেন। তাহলে আপনাকে অবশ্যই HTML and CSS সম্পর্কে ধারনা রাখতে হবে।

আপনি যে ক্ষেত্রেই কাজ করেন না কেন, আপনার কোন না কোন ভাবে HTML and CSS কাজে লাগবেই।

আর যদি আপনি ওয়েব ডেভেলাপমেন্ট এ ক্যারিয়ার গড়তে চান তাহলে তো আপনাকে অবশ্যই শিখতে হবে।

Web designing হলো ওয়েব ডেভেলাপমেন্ট শিখার প্রথম ধাপ।

ওয়েব ডেভেলাপমেন্ট এর জন্য ওয়েব ডিজাইনিং শিখা খুবই জরুরি।

 

ওয়েব ডিজাইনিং শিখা কাদের জন্য উপযুক্ত :

যারা website ব্রাউজ করতে ভালোবাসেন ও আপনার মনে আগ্রহ হয় যে, কিভাবে ওয়েবসাইট টি তৈরি হয়েছে তা জানতে হবে।

তাহলে, আপনি এই সেক্টরে ভালো করতে পারবেন এতে কোন বিন্দু মাত্র সন্দেহ নাই।

আমি প্রায় বরাবরই আগ্রহের কথা বেশ গুরুত্বের সাথে বলে থাকি।

 

ওয়েব ডিজাইন মার্কেটে চাহিদা কেমন :

বর্তমান মার্কেটে ওয়েব ডিজাইন এর প্রচুর পরিমান চাহিদা রয়েছে।

তবে আপনি যদি শুধুমাত্র ওয়েব ডিজাইন শিখেন তাহলে আপনার কাজ না পাওয়ার সম্ভাবনা কিছুটা কমে যাবে।

আপনাকে ডায়নামিক ওয়েবসাইট ডিজাইন বা তৈরি করা শিখতে হবে।

মানে হল ওয়েব ডেভেলাপমেন্ট শিখতে হবে।

যদি  আপনার তা বেশ কঠিন হয়ে যায় তবে আপনি সাধারন ভাবে ওয়ার্ডপ্রেস শিখতে পারেন।

ওয়ার্ডপ্রেস হলো একটা ওয়েব কনটেন্ট ম্যানেজমেন্ট সিষ্টেম বা CMS।

যা দ্বারা আপনি সহজেই ডায়নামিক website design করতে পারবেন।

বর্তমানে মার্কেটে ওয়ার্ডপ্রেসের চাহিদা অনেক।

 

আয় সম্ভাবনা কেমন :

আয় নির্ভর করে আপনার অভিজ্ঞতার উপর।

আমার মতে শুধুমাত্র ওয়েব ডিজাইনিং শিখে অনেক বেশি আয় করা যায় না। গেলেও তা বেশ ঝামেলাযুক্ত।

আমি পরামর্শ দিবো,

অবশ্যই ওয়েব ডিজাইন এর সাথে সাথে ওয়ার্ডপ্রেস শিখার জন্য।

তাহলে মাসে একটা ভালো এমাউন্ট আয় করা সম্ভব। মার্কেটে ওয়ার্ডপ্রেসের চাহিদা অনেক।

 

ওয়েব ডিজাইন শিখতে হলে আপনার কি যোগ্যতা লাগবে ও কত সময় লাগবে :

ওয়েব ডিজাইনিং শিখতে তেমন বেশি কোন শিক্ষাগত যোগ্যতা লাগবে না।

আপনার ইংলিশ পড়া, লেখা ও বুঝার ক্ষমতা এবং ইচ্ছাশক্তিটাই যথেষ্ট।

যে কেউ চাইলে ওয়েব ডিজাইন (web design) শিখতে পারে। আর ওয়েব ডিজাইন শিখতে গেলে একদম নতুন হিসাবে ৩ মাস লাগতে পারে।

তবে কিছুটা বেশি সময় দিলে ২ মাসেই HTML and CSS মোটামোটি ভালোভাবে আয়ত্ব করা সম্ভব হবে।

তবে মনে রাখবেন,

ওয়েব ডিজাইন এর সাথে ওয়েব ডেভেলাপমেন্টের নিবিড় সম্পর্ক রয়েছে।

অতএব, ওয়েব ডিজাইনিং শিখতে কম সময় লাগলেও ওয়েব ডেভেলাপমেন্ট শিখতে ২ বছর পর্যন্ত লেগে যেতে পারে।

ওয়েব ডিজাইন শেখার পদ্ধতি ভালভাবে জেনে কাজ করলে দ্রুত কাজ শেখা যায়।

 

কোন কোন ওয়েবসাইট আপনাকে ফলো করতে হবে :

১. https://www.w3schools.com

প্রথমত, এইটাকে ওয়েব ডিজাইনিং শিখার বাইবেল বলা হয়ে থাকে।

কারন এই ওয়েবসাইট থেকে আপনি HTML and CSS এর সবকিছু জেনে নিতে পারবেন।

২. https://getbootstrap.com

দ্বিতীয়ত, এটা হলো একটা ফ্রেমওয়ার্ক।

অত্যন্ত দারুন একটা ফ্রেমওয়ার্ক যা ওয়েব সাইট রেস্পনসিভ করতে ব্যাবহার করা হয়।

যা আপনার ওয়েব ডিজাইন করার অভিজ্ঞতাই পরিবর্তন করে দিবে। অবশ্যই আপনাকে এটি শিখতে হবে।

 

কোথায় কাজ পাবেন :

শুধু HTML and CSS শিখে খুব একটা কাজ পাওয়া যাবে না।

কারন বর্তমানে সবাই ডায়নামিক ওয়েবসাইট তৈরি করতে চায়।

আবার অনেকে ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট একসাথে চায়। যাকে বলা হয় ফুলস্টাক।

তাই আপনাকে ডায়নামিক করা শিখতে হবে। তা না হলে আপনি নিখুঁত কোডিং করতে পারবেন না।

কারন HTML and CSS কোড করার সময় ডায়নামিকের কথা মাথায় রেখে কোড করতে হয়।

তা না হলে ডায়নামিক করার সময় বেশ ঝামেলায় পড়তে হয়।

আপনি কোথায় কোথায় কাজ খুঁজতে পারেন এ নিয়ে আমার একটা পরিপূর্ণ লেখা আছে।

 

সুতরাং, এই পোষ্টটি পড়লে বুঝতে পারবেন নতুনদের কোথায় কাজ করা উচিত।

মূলত নিজেকে স্বাধীন দেখতে কে না চান?

কমবেশি সবাই চান যে তারা একদিন নিজের পায়ে দাঁড়াবেন।

নিজের স্বপ্নগুলো পূরণ করার পাশাপাশি ফ্যামিলিকেও প্রপার সাপোর্ট দিবেন।

সত্যি বলতে, আজ কাল কার দিনে নিজের পায়ে দাঁড়ানোর জন্য সবার চারপাশে অনলাইন কিংবা অফলাইন বিভিন্ন রকম কাজের অপশন প্রচুর রয়েছে।

তবে এই অপশন গুলোর মধ্যে অনলাইন আয় সবার কাছে একটু বেশিই প্রিয়।

কেননা অনলাইন আয়ের ক্ষেত্রে নিজের সুযোগ সুবিধামতো কাজ করার লাভ পাওয়া যায়।

যেটা অফলাইন আয়ে নেই বললেই চলে।

 

পরামর্শ : মার্কেটে web design এর প্রচুর পরিমান চাহিদা রয়েছে। আপনি ডায়নামিক website design শিখে ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসে রেজিস্ট্রেশন করে কাজ শুরু করতে পারেন।

সর্তকতা : ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসে কাজ করতে হলে প্রথমে আপনাকে দক্ষ হতে হবে। তা নাহলে সফলতা অর্জন করতে পারবেন না।

 

মন্তব্য :

পরিশেষে বলা যায় যে, ওয়েব ডিজাইন শেখার পদ্ধতি সম্পর্কে এখানে বিস্তারিত আলোচনা করেছি।

সর্বোপরি, উপরে উল্লেখিত বিষয় গুলো মেনে কাজ করলে ইনশাআল্লাহ আপনি সফল ওয়েব ডিজাইনার হতে পারবেন।

আমার লেখা সম্পর্কে আপনার মতামত কমেন্টে জানাতে ভূলবেন না।

যদি আমি কোন বিষয় মিস করে থাকি অথবা আপনি আরও কোন বিষয় সম্পর্কে জানতে চান তাহলে অবশ্যই আমাকে কমেন্ট করে জানাবেন।

পোস্টটির মাধ্যমে উপকৃত হয়ে থাকলে অবশ্যই লাইক দিয়ে বন্ধুদের সাথে শেয়ার করবেন। সবসময় সুস্থ, সুন্দর ও নিরাপদে ভাল থাকবেন। আমাদের আরও অন্যান্য পোস্টগুলো ভাল লাগলে অবশ্যই পড়তে পারেন।

এই ধরণের লেখার নিয়মিত আপডেট পেতে আমাদের ফেসবুক পেজে এবং টুইটারে ফলো করে রাখতে পারেন।

ধন্যবাদ

 

Leave a Comment