কোডিং কি? কিভাবে কোডিং শিখবেন – Newfreelancing

0Shares

 

কোডিং কি – এক কথায় বলতে গেলে কোন প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ ব্যবহার করে কম্পিউটারকে দিয়ে কোনও কাজ সম্পন্ন করানোর পদ্ধতি কেই কোডিং বলে।

 

কোডিং কি (What is coding ) :

what is coding in Bangla?

কোডিং বা কোড শব্দের অর্থই হল – সংকেতলিপি, বিধিবদ্ধ আইনসমূহ।

অর্থাৎ কোডিং হল এমন একটি বিষয় এবং এর সাথে সম্পৃক্ত মানুষ, অন্যান্য সত্তা অবধি সমস্ত কিছুর তথ্য উপাত্ত লিপিবদ্ধ করার একটি উত্তম মাধ্যম।

আপনি যে কোন বিষয়ের উপর ভিত্তি করে কোডিং বা কোড করতে পারেন।

 

সহজ ভাষায় কোডিং বলতে,

আমরা আমাদের কম্পিউটারে যা দেখি সব কিছুই কোডিং এর ফলাফল বা কাজ।

আর এই কোডিংগুলো বিভিন্ন ল্যাংগুয়েজে লিখা হয়। যেমনঃ সি, সি++, জাভা ইত্যাদি।

 

কোডিং এর ধরন :

কোডিং এর ধরন বিভিন্ন রকমের আছে।

কারণ এক একটা সফ্টওয়্যার একেক ধরনের চাহিদা প্রদান করে এবং কাজ করার সুবিধার্থে ভিন্ন ভিন্ন ধরনের কোডিং করে থাকে।

যেমন-

১. ফাংশনাল প্রোগ্রামি :

ফাংশনাল প্রোগ্রামি এ নির্দেশনা সঞ্চালনের চেয়ে প্রোগ্রামিং এর রাশিমালা এবং বাক্যের ধরনকে বেশি প্রাধান্য দেওয়া হয়।

 

২. মডুলার প্রোগ্রামিং :

মডুলার প্রোগ্রামিং হল অনেকগুলো ফাংশনের ধারা বা ক্রম।

এই প্রোগ্রামিং এর মাধ্যমে বিভিন্ন রকমের অ্যাপ্লিকেশন তৈরি করা হয়।

 

৩. অবজেক্ট ওরিয়েন্টেড প্রোগ্রামি :

অবজেক্ট ওরিয়েন্টেড প্রোগ্রামি একটি প্রত্যয় যা বিভিন্ন রকমের বৈপ্লবিক পরিবর্তনের মাধ্যমে কম্পিউটার প্রোগ্রামের উন্নতি সাধন করেছে।

এটি মডুলার প্রোগ্রামের একটি ভিন্ন রূপ। বর্তমান সময়ে প্রোগ্রামিং জগতে এর ব্যাপ্তি সবচেয়ে বেশি।

একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হল, কোডিং এর ক্ষেত্রে এর ধরনগুলো খুব ভাল করে বুঝে এবং এর নির্দেশনাবলী দেখে কাজ করা উচিত।

কারণ নির্দেশনায় ভূল থাকলে আপনার কোড কাজ করবে না।

যেমন-

কিভাবে কমেন্ট করতে হয়, লিখার মাঝে কতগুলো স্পেস বা ট্যাব দিতে হয়, ভেরিয়েবল এবং ফাংশনগুলো ঠিক আছে কিনা দেখতে হবে।

কোড বা কোডিং এর ধরন ঠিক আছে কিনা সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে।

 

কোডিং এর জন্য ব্যবহৃত ল্যাংগুয়েজ :

কোডিং এর ধরন, বিষয়, প্রোগ্রামারের চিন্তাধারা, কাজের সুবিধা এসব কিছুর উপর নির্ভর করে বিভিন্ন অ্যাপ্লিকেশনের জন্য ভিন্ন ভিন্ন ধরনের ল্যাংগুয়েজ ব্যবহার করা হয়।

যেমন-

এসেম্বলি ল্যাংগুয়েজ, অ্যারে ল্যাংগুয়েজ, কনকারেন্ট ল্যাংগুয়েজ, অথোরিং ল্যাংগুয়েজ, কমান্ড লাইন ইন্টারফেস ল্যাংগুয়েজ, কম্পাইল্ড ল্যাংগুয়েজ, ডাটা ওরিয়েন্টেড ল্যাংগুয়েজ, ডাটা স্ট্রাকচার ল্যাংগুয়েজ, ভিজ্যুয়াল ল্যাংগুয়েজ , স্ক্রিপ্টিং ল্যাংগুয়েজ, এক্সএমএল–বেইসড ল্যাংগুয়েজ ইত্যাদি

 

কোডিং এর প্রকারভেদ :

অ্যাপ্লিকেশন এবং ল্যাংগুয়েজ এর উপর ভিত্তি করে কোডিং বিভিন্ন প্রকার হয়ে থাকে।

১. ওয়েব ল্যাংগুয়েজ :

আপনি যদি প্রফেশনাল প্রোগ্রামার নাও হোন, তবুও আপনি ওয়েব ডেভলাপার হিসেবে কাজ করতে পারেন এবং ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারবেন।

এর জন্য আপনি এইচটিএমএল, সি.এস.এস এবং জাভাস্ক্রিপ্ট ব্যবহার করতে পারেন।

 

২. উইনডোজ কোডিং :

উইনডোজ এক্সপ্লোরারে রাইট–ক্লিক করার মত উইনডোজ এর উন্নতি সাধনে যে কোন কাজই হচ্ছে মোটামুটি উইনডোজ কোডিং নামে পরিচিত।

এই ধরনের কাজ করে যারা সেসব প্রোগ্রামারদের চাহিদা অনেক বেশি।

সি++, সি#, ডট নেট উইনডোজ অ্যাপ্লিকেশন লিখতে কাজে লাগে। সি++ ভাল জানা থাকলে সি#, ভিবি ডট নেট শিখতে সহজ হয়।

এছাড়াও ভিন্ন প্রকারের কিছু ল্যাংগুয়েজ আছে, যেগুলোর ব্যবহার খুব একটা চোখে না পড়লেও বড় বড় অ্যাপ্লিকেশন লিখার ক্ষেত্রে কাজে আসে।

যেমন, ভিবিএ, অ্যাকশনস্ক্রিপ্ট ইত্যাদি। এগুলো ওয়ার্ড, এক্সেল ও গেমিং এর মত অ্যাপ্লিকেশন লিখার কাজে আসে।

 

কিভাবে কোডিং শিখবেন :

আপনি যে কোন উপায়ে কোডিং শিখতে পারেন।

আজকাল কোডিং বা প্রোগ্রামিং শিখানোর জন্য বিভিন্ন প্রকার প্রতিষ্ঠান রয়েছে।

এছাড়াও আপনি ইচ্ছা করলে ঘরে বসে অনলাইন থেকে প্রোগ্রামিং শিখতে পারেন।

কোডিং শিখার জন্য বেশ কিছু ভাল ওয়েবসাইট আছে।

প্রোগ্রামিং এ আপনি যদি একদম নতুন হয়ে থাকেন, তাহলে পাইথন দিয়ে শুরু করতে পারেন।

অনেক সুন্দর ভাবেই শেখা শুরু করে কাজ করতে পারবেন।

 

ইংরেজী টিউটোরিয়াল :

১. W3Schools Online Tutorials

২. Programming Hero

৩. Python tips and trick

 

বাংলা টিউটোরিয়াল :

পাইথন দিয়ে প্রোগ্রামিং শেখার ফ্রি বাংলা বই

Zulkarnine Mahmud

আরও অনেক কিছু পাবেন যদি একটু সার্চ করে দেখেন।

 

প্রোগ্রামিং শেখার প্রয়োজনীয়তা :

প্রোগ্রামিং শেখার প্রয়োজনীয়তা অপরিসীম। কারণ এটি আপনার যোগ্যতার মাত্রাকে আরও উপরে নিয়ে যেতে সহায়ক হবে।

তাই আপনি চাকুরি জগতে যেমন সফলতার সাথে এগিয়ে যাবেন তেমনি নিজেও নানাবিধ কাজ করতে পারবেন।

নিজের জন্য ওয়েবসাইট খুলতে পারবেন এবং এখানেই আপনি নিজের শিখা ল্যাংগুয়েজ গুলো অন্যকে শিখিয়ে টাকা আয় করতে পারবেন।

নিজের ব্যবসা করতে পারবেন। যেমনঃ আপনার তৈরি ভাল মানের সফটওয়ার বিক্রি করতে পারবেন, ভাল মোবাইল অ্যাপ বিক্রি করতে পারবেন।

এছাড়াও আপনি ফ্রিলান্সিং এর কাজ করে টাকা আয় করতে পারবেন।

তাছাড়া ইচ্ছ করলে নিজে সফটওয়ার কোম্পানি খুলতে পারবেন।

বর্তমান বিশ্বে কম্পিউটার যত বেশি উন্নত হচ্ছে প্রোগ্রামারদের চাহিদা তত বেশি বাড়ছে।

আর তাই, আপনিও প্রোগ্রামিং জগতে প্রবেশ করে নিজে দক্ষতা অর্জন করে নতুন কিছু সৃষ্টি করুন।

আরও পড়ুন-

 

কম্পিউটার বিভিন্ন ধরনের কাজ অস্বাভাবিক দ্রুততার সাথে এবং নির্ভুল ভাবে সম্পন্ন করতে পারে ।

সমস্যা হল কম্পিউটার বা কোন মেশিন আমাদের ভাষা বুঝতে সক্ষম নয়।

সুতরাং আমাদের কম্পিউটারের সাথে যোগাযোগ করার জন্যে কোন এক মাধ্যম প্রয়োজন হয়।

কোড বা কোডিং হল যার মাধ্যমে আমরা কম্পিউটারকে নির্দেশ দিই এক বা একাধিক সুনির্দিষ্ট কাজ সম্পূর্ণ করার জন্য।

অর্থাৎ একটি কম্পিউটার কিভাবে, কোথায় এবং কি কাজ করবে সেটা আমরা কোডিং এর মাধ্যমে নির্দেশ দিয়ে থাকি।

 

এক কথায় বলতে গেলে,

কোন প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজকে ব্যবহার করে কম্পিউটারকে দিয়ে কোনও কাজ সম্পন্ন করানোর পদ্ধতিকেই কোডিং বলে।

অর্থাৎ, বর্তমানে ক্যালকুলেটর থেকে শুরু করে মোবাইল ফোনের অ্যাপস, কম্পিউটার সফওয়্যার ও সুপার কম্পিউার সবার মূলে আছে এই কোডিং এর কারিশমা।

আজকের দিনের কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা (AI) দিয়ে যে সমস্ত কাজ করা হচ্ছে তা তৈরি হচ্ছে লাইন এর পর লাইন কোডিং দিয়ে।

মেশিন লার্নিং ( machine learning) এবং সফটওয়্যার ডেভেলপমেন্ট (software development) এর চাহিদা ক্রবর্ধমান আজকের দুনিয়ায়, এসব সমস্ত কিছুর গোঁড়ায় সেই প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ দিয়ে সাজানো কোডিং।

আর এই কোডিং যারা করে তাদেরকে প্রোগ্রামার বলা হয়, বিশ্ব জুড়ে ভাল প্রোগ্রামারদের চাহিদা আজ অনেক বেশি।

তাই কোডিং শেখা বর্তমান সময়ে কম বেশি সবার প্রয়োজন।

কম্পিউটারের বিজ্ঞানের ভাষায়, কোডিং বলতে কোন সফটওয়্যার তৈরির লক্ষ্যে কোন প্রোগ্রামিং ভাষা ব্যবহার করে কিছু যুক্তিমূলক(লজিকাল) নির্দেশনা(ইনস্ট্রাকশন) লেখাকে কোডিং বলে।

এই ইনস্ট্রাকশন অনুযায়ী কম্পিউটার কাজ করে। অনেকগুলো ইনস্ট্রাকশনের সমষ্টিকে প্রোগ্রাম বলে। অনেকগুলো প্রোগ্রামের সমষ্টিই হল সফটওয়্যার।

 

মন্তব্য :

পরিশেষে বলা যায় যে, কোডিং কি? কিভাবে কোডিং শিখবেন এ সম্পর্কে এখানে বিস্তারিত আলোচনা করেছি।

সর্বোপরি, উপরে উল্লেখিত বিষয় গুলো মেনে কাজ করলে ইনশাআল্লাহ আপনি কোডিং শিখে টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

কনটেন্ট রাইটিং কি? এস ই ও ফ্রেন্ডলি Content writing লিখার নিয়ম আমাদের ওয়েবসাইট থেকে পড়ে নিন। তাছাড়া আমার লেখা ফ্রিল্যান্সিং সেক্টরে ক্যারিয়ার গড়ার গাইড লাইন পোস্টটি আপনার জন্য খুবই উপকারী হবে।

যদি আমি কোন বিষয় মিস করে থাকি অথবা আপনি আরও কোন বিষয় সম্পর্কে জানতে চান। তাহলে অবশ্যই আমাকে কমেন্ট করে জানাবেন। অবশ্যই লাইক দিয়ে বন্ধুদের সাথে শেয়ার করবেন।

সবসময় সুস্থ, সুন্দর ও নিরাপদে ভাল থাকবেন। আমাদের আরও অন্যান্য পোস্টগুলো ভাল লাগলে অবশ্যই পড়তে পারেন।

এই ধরণের লেখার নিয়মিত আপডেট পেতে আমাদের ফেসবুক পেজে এবং টুইটারে ফলো করে রাখতে পারেন।

ধন্যবাদ

 

Leave a Comment