ফাইভার কি? ফাইভার কিভাবে কাজ করে? – What is fiverr

0Shares

 

ফাইভার কিভাবে কাজ করে তা হল আপনাকে কাজ খুজঁতে হবে।

বায়ারও তার কাজ করানোর জন্য আপনাকে খুঁজে বের করে নেবে।

অর্থাৎ আপনার কাজ বিক্রির মাধ্যমে আয় করতে পারবেন। এটি হচ্ছে এমন একটি মার্কেটপ্লেস।

যেখানে আপনি যা পারেন না কেন তা দিয়েই আপনি ইনকাম করতে পারবেন।

 www.fiverr.com আপনি যে কাজটি পারেন সেটি এ ওয়েবসাইটে অফার করবেন।

বায়ার আপনাকে দিয়ে কাজটি করিয়ে নেবে তার প্রয়োজন অনুযায়ী।

তাহলে, এবার চলুন জেনে নেওয়া যাক ফাইভার কিভাবে কাজ করে।

 

ফাইভার কি ( What is fiverr ) :

এটি এমন একটি ওয়েবসাইট যেখানে আপনি আপনার কাজ বিক্রির মাধ্যমে আয় করতে পারবেন।

এখানে আপনি আপনার যেকোন সার্ভিস ৫ থেকে ৫,০০০ ডলারের অধিক মূল্যের বিনিময়ে বিক্রয় করতে পারবেন।

এটা আপনার কাজের দক্ষতার উপর নির্ভর করবে।

মনে করেন, আপনি গ্রাফিক্স ডিজাইনের কাজ পারেন।

এক্ষেত্রে আপনি যে কোন ডিজাইন করে দেওয়ার মাধ্যমে আয় করতে পারবেন।

আপনি লিখলেন আমি ৫ ডলারের বিনিময়ে একটি ব্যানার ডিজাইন করে দিতে পারি।

এরপর যদি কোন বায়ার ব্যানার তৈরী করাতে চায় তাহলে সে ৫ ডলারের বিনিময়ে আপনাকে দিয়ে কাজটি করিয়ে নিতে পারে।

গ্রাফিক্স ডিজাইন ছাড়াও এখানে কাজের বিভিন্ন ক্যাটাগরী আছে।

যেমন :

১. গ্রাফিক্স ডিজাইনের মাধ্যমে আয় করতে পারবেন।

২. ওয়েব ডিজাইন করে আয় করতে পারবেন।

৩. লগো ডিজাইন করে আয় করতে পারবেন।

৪. কোন ওয়েবসাইটের এসইও এর কাজ করার মাধ্যমে আয় করতে পারবেন।

৫. কারও জন্য ছবি এঁকেও আপনি আয় করতে পারবেন।

৬. আপনি একটি কবিতা লিখে দেওয়ার মাধ্যমে আয় করতে পারবেন।

৭. আর্টিকেল লিখে আয় করতে পারবেন।

৮. সোস্যাল মিডিয়া পরিচালনা করে আয় করতে পারবেন।

এছাড়া আরও এধরনের নানাবিধ কাজ করে দিয়ে আপনি আয় করতে পারবেন।

 

ফাইভার কিভাবে কাজ করে :

How Fiverr works – আপনি যে কাজটি করতে দক্ষ সেটির উপরে একটি গিগ তৈরী করবেন।

আপনার  সেবা বা সার্ভিসটি সম্পর্কে বিস্তারিত লিখে অফার করুন, তারপর কাজটি পোস্ট করুন।

এরপর কোন বায়ারের কাজের চাহিদা যদি আপনার অফারকৃত স্যাম্পলের সাথে মিলে যায়।

তাহলে, কাজটি করানোর জন্য সে অর্ডার করবে।

আর আপনি কাজটি সঠিকভাবে করে দিলেই বায়ার নির্ধারিত ৫ ডলার পরিশোধ করবে।

এই ৫ ডলারের মধ্যে ১ ডলার ওয়েবসাইট কর্তৃপক্ষ কেটে রাখবে এবং বাকি ৪ ডলার আপনি পাবেন।

এরপর বায়ার আপনার কাজের একটি ফিডব্যাক দেবে।

 

মনে রাখবেন,

পজেটিভ ফিডব্যাক বেশি সেল বৃদ্ধি করে।

এটির অর্থ আপনি বায়ারের নিকট হতে পজেটিভ ফিডব্যাক পেলে আপনার সার্ভিসটি আরও বেশিবার বিক্রি করতে পারবেন।

আর আপনি যতবার সার্ভিসটি বিক্রি করতে পারবেন ততবেশি আয় করতে পারবেন।

সাইট কর্তৃপক্ষ তত বেশি রেভিনিউ পাবে। এর জন্য  ফাইভার ওয়েবসাইট আপনার সার্ভিসের কারণে এত বেশি রেভিনিউ পাচ্ছে।

আপনি কি তাদের কাছে কোন বোনাস আশা করতে পারেন? অবশ্যই পারেন।

আর ওয়েবসাইট কর্তৃপক্ষও ভাল সেলারদের হতাশ করবে না।

সুতরাং আপনি যদি ভাল সেলার হতে পারেন তাহলে আপনার প্রত্যাশা মোতাবেক তারা আপনাকে কিছু বোনাস দেবে।

সে হিসেবে আপনার কাজের রেটও বৃদ্ধি পাবে।

যেমন :

১. লেভেল ওয়ান সেলার

২. লেভেল টু সেলার

৩. টপ রেটেড সেলার

 

১. লেভেল ওয়ান সেলার :

যেসব Seller কমপক্ষে ১০ বার বা তার বেশি সার্ভিসটি বিক্রি করতে পারবে বা যে সার্ভিসটি করানোর জন্য বায়ারদের নিকট হতে কমপক্ষে ১০ বার ভালো রেটিং এবং ট্রাক সহকারে order আসবে ঐ সার্ভিসটির Seller অটোমেটিক্যালি লেভেল ওয়ান এর পদ পাবে।

এ লেভেলে যারা থাকবে তারা নতুন ফিচারে প্রবেশ করার সুযোগ পাবে এবং Advanced services অফার করার সুযোগ পাবে এবং আয়ও বৃদ্ধি পাবে।

 

২. লেভেল টু সেলার :

যেসব Seller পূর্ববর্তী ২ মাসে ৫০ বারের বেশি ভাল রেটিং এবং ট্রাক সহকারে সার্ভিস বিক্রির order পাবে তারা স্বয়ংক্রিয়ভাবে লেভেল টু পদ অর্জন করবে।

এ লেভেলে আরো অনেক বেশি ফিচার যুক্ত হবে এবং Priority support পাবে। আর আয় তো বাড়বেই।

 

৩. টপ রেটেড সেলার :

এ লেভেলের ‍Seller নির্ধারিত হয় Fiverr সাইট কতৃপক্ষের বাছাইয়ের মাধ্যমে ।

সাইট কতৃপক্ষ লেভেল টু সেলারদের মাঝে থেকে বিভিন্ন বিষয় বিবেচনা করে টপ রেটেড সেলার নির্ধারণ করে থাকেন।

বিবেচনার ক্ষেত্রে seniority, volume of sales, exceptional customer care, extremely high rating, community leadership ইত্যাদি বিষয়সমুহকে গুরুত্ব দেওয়া হয়।

টপ রেটেড সেলার গণ আরও বেশি সুযোগ ‍সুবিধা ভোগ করেন এবং VIP Support পেয়ে থাকেন।

আরও পড়ুন-

 

কিভাবে একই সার্ভিস আবার সেল করবেন :

১. সার্ভিস কোয়ালিটি ও আন্তরিকতা :

কাজ এবং কথায় আন্তরিক হোন। কোন সেলার যদি একাধিকবার কোন সার্ভিস বিক্রি করতে চান।

তাহলে, সেলারকে অবশ্যই কাজে এবং কথায় আন্তরিক হতে হবে।

তবেই না বায়ারের নিকট থেকে ভাল রিভিউ পাওয়া সম্ভব হবে।

যদি, আপনার সার্ভিসটি যদি বায়ারকে সন্তষ্ট করতে পারে।

তবে আবারও সেই বায়ার আপনার নিকট থেকে এ সার্ভিসটি নিতে আগ্রহী হবে।

বায়ার যদি আপনার নিকট কাজ বিষয়ক কোন কিছু জানতে চায় তাহলে সুন্দরভাবে সঠিক পরামর্শ দিন।

 

২. ইউনিক কাজ :

কাজের ক্ষেত্রে ইউনিক হোন। ধরুন আপনি কোন বিষয়ের উপর লগো ডিজাইন করলেন।

সেটি ফাইভারে সেল করার জন্য অফার করলেন।

কোন বায়ার যদি আপনার লগো ডিজাইনটি কেনে এবং তার ভাল লাগে।

তবেই না সে আপনার নিকট থেকে লগো ডিজাইনটি কেনার ব্যাপারে আগ্রহী হবে।

আপনার লগো ডিজাইনটি কোন বিষয় যদি ইউনিক ভাবে সুন্দর করে উপস্থাপন করতে পারেন তাহলে বায়ারের অবশ্যই ভাল লাগবে।

 

৩. ভাল রিভিউ :

বেশি সেল পাওয়ার উপায় হল ভাল একটি রিভিউ। ভাল রিভিউ আপনার সার্ভিস বিক্রির ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।

সাধারণত ভাল রিভিউ ছাড়া কোন বায়ারই আপনার সার্ভিসের প্রথম গ্রাহক হতে চাইবে না।

কারন আপনার কাজ সম্পর্কে তার কোন ধারনাই নেই।

ভাল একটি রিভিউ থাকলে অন্য বায়াররাও আপনার কাজের ব্যাপারে আগ্রহী হবে এবং সার্ভিস গ্রহন করবে।

সুতরাং আপনার কাজ বা সার্ভিসের প্রথম রিভিউটা খুব গুরুত্বপূর্ণ।

প্রথম দুই তিন জন বায়ারের নিকট থেকে ভাল রিভিউ পাওয়ার জন্য আপনি তাদের প্রয়োজন অনুযায়ী ছোট খাট আরও দু একটি কাজ ফ্রি করে দেওয়ার অফার করতে পারেন।

সুতরাং সময় একটু বেশি লাগলেও কাজগুলি সুন্দর এবং ইউনিক ভাবে বা একটু ভিন্নতার সহিত উপস্থাপন করার চেষ্টা করুন।

এতেই বায়ার খুশি হয়ে ভাল একটি রিভিউ দেবে বলে আশা করা যায়।

 

কিভাবে ফাইভারে আপনার অফারটিকে আকর্ষণীয় করে তুলবেন :

ফাইভারে একই সার্ভিসের উপর অনেক অফার থাকতে পারে ।

যেহেতু, এটি একটি মার্কেটপ্লেস।

সুতরাং আপনার সার্ভিসটি সেল করতে হলে আপনাকেও প্রতিদ্বন্দিতা করতে হবে।

একটু কৌশলের মাধ্যমে কাজ করলেই আপনি আপনার অফারটিকে আকর্ষণীয় করে তুলতে পারেন।

এবং প্রতিযোগিতায় এগিয়ে থাকতে পারেন।

তাহলে, এবার চলুন জেনে নেওয়া যাক কীভাবে ফাইভারে আপনার অফারটিকে আকর্ষণীয় করে তুলবেন।

 

১. ইউনিক একটি টাইটেল :

ইউনিক একটি টাইটেল থাকলেই আপনার অফারটি বায়ারদের নিকট আরও বেশি গ্রহনযোগ্য মনে হবে।

যেহেতু, টাইটেলই সর্বপ্রথম বায়ারদের দৃষ্টি আকর্ষণ করে তুলে।

সেহেতু টাইটেলের মাঝে আপনার অফারকৃত সার্ভিসের মূল কীওয়ার্ডগুলি অবশ্যই দিয়ে ‍দিবেন।

 

২. আকর্ষণীয় ইমেজ :

বিষয়বস্তুর সঙ্গে সঙ্গতিপূর্ণ ইমেজ।

আপনার সার্ভিসের অফার সংশ্লিষ্ট একাধিক ইমেজ আপনার অফারটিকে আরও বেশি আকর্ষণীয় করে তুলবে।

একটি আকর্ষনীয় ইমেজ হাজারটি বাক্যের চেয়েও উত্তম।

সুতরাং অফারের সাথে যে ইমেজটি সংযুক্ত করবেন সেটি গুরুত্বের সঙ্গে বাছাই করবেন।

এই আর্টিকেলটি পড়ে আসুন –

Fiverr gig image তৈরির গুরুত্বপূর্ণ বিষয় 

 

৩. আকর্ষণীয় ডেসক্রিপশন :

আপনি যে সার্ভিসটি অফার করবেন সেটির একটি সুন্দর বর্ণনা দেওয়ার চেষ্টা করুন।

তাহলে বায়ার আপনার সার্ভিসটি কেনার জন্য আগ্রহী হবে।

আপনার সার্ভিসের ডেসক্রিপশন তারাই পড়বে যারা আপনার টাইটেল এবং ইমেজ দেখে আগ্রহী হওয়ার পর আরও বিস্তারিত জানতে ক্লিক করবে।

সুতরাং ডেসক্রিপশনটি এমনভাবে লিখুন যেন এটি পড়লে বায়ার আপনার সার্ভিসটি কেনার জন্য আগ্রহ হয়।

 

কিভাবে ফাইভার থেকে টাকা তুলবেন :

ফাইভার থেকে আপনার উপার্জনকৃত  অর্থ পেওনিয়ার এর মাধ্যমে উত্তোলন করতে পারবেন।

আপনি যদি ফাইভার থেকে ৫ ডলার আয় করেন সেক্ষেত্রে আপনার একাউন্টে জমা হবে ৪ ডলার।

কারণ ওয়েকসাইট কর্তৃপক্ষ আপনার আয়ের  ২০% তাদের কমিশন হিসাবে কেটে রাখবে।

সুতরাং এই হিসাবেই আপনার একাউন্টে ডলার জমা হবে।

এরপর জমাকৃত অর্থ আপনি পেওনিয়ার এর মাধ্যমে তুলতে পারবেন।

বাংলাদেশের জন্য সহজ ও নির্ভরযোগ্য পেমেন্ট সিস্টেম পেওনিয়ার ডেবিট মাষ্টার কার্ড ফাইভার থেকে টাকা তুলার জন্য।

অর্থাৎ, পেওনিয়ার ডেবিট মাষ্টার কার্ডের মাধ্যমে এটিএম থেকে টাকা উত্তোলন করা যাবে।

 

মন্তব্য :

পরিশেষে বলা যায় যে, ফাইভার কি? ফাইভার কিভাবে কাজ করে? – what is fiverr এ সম্পর্কে এখানে বিস্তারিত আলোচনা করেছি।

সর্বোপরি, উপরে উল্লেখিত বিষয় গুলো মেনে কাজ করলে ইনশাআল্লাহ আপনি ফাইভারে সফল হতে পারবেন। অতএব, আমার লেখা সম্পর্কে আপনার মতামত কমেন্টে জানাতে ভূলবেন না।

যদি আমি কোন বিষয় মিস করে থাকি অথবা আপনি আরও কোন বিষয় সম্পর্কে জানতে চান। তাহলে অবশ্যই আমাকে কমেন্ট করে জানাবেন।

এই ধরণের লেখার নিয়মিত আপডেট পেতে আমাদের ফেসবুক পেজে এবং টুইটারে ফলো করে রাখতে পারেন।

ধন্যবাদ

 

Leave a Comment